ঘরে বসেই বানান ‘পারফেক্ট মিষ্টি দই’

ঘরে বসেই বানান ‘পারফেক্ট মিষ্টি দই’


0 998

বাংলা গ্যাজেট ডেস্ক: দই একটি জনপ্রিয় সুস্বাদু ভিটামিনসমৃদ্ধ খাবার। প্রতি ৮ আউন্স দইয়ে রয়েছে ৮-১০ গ্রাম প্রোটিন, যা তরল দুধ থেকে ১৬-২০% বেশি। ক্যালসিয়ামের একটা বড় আংশ পাওয়া যায় দইয়ে। দইয়ে চর্বি কম থাকে। এতে রয়েছে প্রয়োজনীয় খনিজ ও ভিটামিন রিবোফ্লাভিন বি-২, বি-১২, ফসফরাস, পটাশিয়াম ইত্যাদি

দই পছন্দ করেন না এমন মানুষ মেলা ভার। বিশেষ করে একটু ভারী খাবার শেষে ‘মিষ্টি দই’ খেতে কার না ভালো লাগে? কিন্তু বাসায় দই বানালে দেখা যায় বাজার থেকে কিনে আনা দইয়ের মত ঠিক জমে না। তবে নিচের রেসিপি অনুযায়ী দই বানালে এবার থেকে দই হবে ‘পারফেক্ট মিষ্টি দই’। যারা একেবারেই নতুন তারাও শিখে নিতে পারেন এই সহজ ও সুস্বাদু পারফেক্ট মিষ্টি দইয়ের রেসিপি।

উপকরণঃ

দুধ ১ লিটার,

পানি ১ কাপ,

চিনি ২০০ গ্রাম,

১ টি মাটির পাত্র ও

২ টেবিল চামচ দইয়ের বীজ।

দইয়ের বীজ তৈরির পদ্ধতিঃ দইয়ের বীজ আপনি দুভাবে তৈরী করতে পারবেন –

১) আগের দই থেকে ২ টেবিল চামচ সরিয়ে রাখুন।

২) ১ কাপ দুধে ১ কাপ পরিমাণে গুঁড়ো দুধ দিয়ে ভালো করে জ্বাল দিয়ে ক্ষীর তৈরি করে নিন। এটিই দইয়ের বীজ হিসেবে কাজ করবে।

প্রণালী:

প্রথমে একটি পাত্রে দুধ নিয়ে এতে ১ কাপ পানি মিশিয়ে মাঝারি আঁচে জ্বাল দিতে থাকুন। দুধ জ্বাল দিয়ে অর্ধেক পরিমাণে হয়ে এলে এতে চিনি দিয়ে ভালো করে নেড়ে দিন। দুধ আরও ঘন হয়ে এলে চুলা থেকে নামিয়ে কিছুক্ষণ ঠাণ্ডা হতে দিন। এবার হাতের আঙুল ডুবিয়ে দেখুন গরম সহ্য করা যায় কিনা। অর্থাৎ দুধ কুসুম গরম থাকতে দুধে দইয়ের বীজ দিয়ে ভালো করে নেড়ে মিশিয়ে নিন।

এবার মাটির পাত্রে ঢেলে ভারী মোটা কাপড় বা চটের কিছু দিয়ে ঢেকে অন্ধকার ও ঠাণ্ডা জায়গায় ৬-৭ ঘণ্টা রেখে দিন। ৬-৭ ঘণ্টার মধ্যে দই জমে যাবে। আর যদি ঠাণ্ডা দই খেতে চান তবে ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা করুন। হয়ে গেল মিষ্টি ও সুস্বাদু দই।

 

NO COMMENTS

Leave a Reply