গুজরাট দাঙ্গাঃ বিচার নাকি প্রহসন

    
    0 496

    বাংলা গ্যাজেট ডেস্ক: গুজরাটের মুসলিম অধ্যুষিত গুলবার্গ আবাসিক এলাকায় ঢুকে সহস্রাধিক মুসলিম নারী-পুরুষকে নির্বিচারে কুপিয়ে হত্যার মামলায় আলোচিত আসামি বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেতা অতুল বৈদ্যকে ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। এ ছাড়া ১১ আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত করেছে আদালত।

    শুক্রবার দেশটির আহমেদাবাদের একটি আদালত এ দণ্ডাদেশ ঘোষণা করেন। মামলায় বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেতা অতুল বৈদ্যসহ ১২ জনকে ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একজনকে ১০ বছরের সাজা দেয়া হয়েছে। মুসলিমবিরোধী ভয়াবহ দাঙ্গার ১৫ বছর পর এ রায় ঘোষণা করা হল।

    গুজরাট দাঙ্গার সময়ের ছবি
    গুজরাট দাঙ্গার সময়ের ছবি

    গত ২ জুন আদালত বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেতা অতুল বৈদ্যসহ ২৪ আসামিকে গুলবার্গ আবাসিক এলাকায় বর্বর ওই হত্যায় অংশ নেয়ায় অভিযুক্ত করে আদালত।

    মামলার শুরু থেকে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট নিয়োজিত আইনজীবী অপরাধীদের সর্বোচ্চ সাজার আবেদন করে আসছিলেন। অবশ্য অভিযুক্তদের আইনজীবী প্রতিপক্ষের এ আবেদনের প্রবল আপত্তি তোলেন।

    ২০০২ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারির কথা। সকাল ৯টার দিকে উগ্রপন্থি হিন্দুরা বিশাল এক মিছিল নিয়ে মুসলিমবিরোধী স্লোগান দিতে দিতে সমবেত হয় আহমেদাবাদের গুলবার্গ মুসলিম আবাসিক এলাকার সামনে। একপর্যায়ে এ উগ্র হিন্দুরা নাঙ্গা তরবারি নিয়ে ঢুকে পড়ে ওই আবাসিক এলাকায়।

    আগুন দিতে শুরু করে আবাসিক বাড়ি-ঘরে। চারদিকে আগুন দেখে দিক-বিদিক ছুটতে থাকে মুসলমান নারী-পুরুষ। এ সময় হিন্দু উগ্রপন্থিরা কুপিয়ে অনেককে হত্যা করে। অনেকে দৌড়ে আশ্রয় নেয় তৎকালীন ক্ষমতাসীন কংগ্রেস দলের এমপি এহসান জাফরির বাড়িতে।

    এ সময় থানায় ফোন করে, প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে কোনো সহযোগিতা পাননি এহসান জাফরি। নিরুপায় জাফরি এগিয়ে এসে ঘটনার কারণ জানতে চাইলে উগ্রপন্থিরা তাকেও কুপিয়ে জখম করে। পরে তার বাড়ির চারদিক বন্ধ করে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে জাফরিসহ আগুনে পুড়ে মারা যান অন্তত অর্ধশত জন। প্রায় ঘণ্টা ছয়েক ধরে নৃশংস ওই গণহত্যা চালায় উগ্রপন্থি হিন্দুরা।

    ইতিহাসের বর্বরোচিত এ হত্যার ঘটনার সময় গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মুসলিমবিরোধী ভয়াবহ এ দাঙ্গা উস্কে দেয়ার অভিযোগও ওঠে মোদির বিরুদ্ধে। অভিযোগের ভিত্তিতে মার্কিন যু্ক্তরাষ্ট্র দেশটিতে মোদির সফরের উপর নিষেধাজ্ঞাও দেয়। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর মোদির ওই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় মার্কিন প্রশাসন।

    জঙ্গি হিন্দুরা মুসলিমদের উপর নির্বিচারে আক্রমন চালাচ্ছে
    জঙ্গি হিন্দুরা মুসলিমদের উপর নির্বিচারে আক্রমন চালাচ্ছে

    গুলবার্গ মুসলিম আবাসিক এলাকায় কংগ্রেস এমপিসহ শতশত মুসলিম নারী-পুরুষকে হত্যার আগের দিন (২৭ ফেব্রুয়ারি) গোধরা স্টেশনে সবরমতী এক্সপ্রেসের কামরায় আগুনে পুড়ে মারা যায় ৫৯ জন করসেবক।

    ওই আগুন মুসলমানদের কাজ বলে অভিযোগ তুলে গুজরাটে মুসলিম আবাসিকে হামলা চালায় উগ্রপন্থি হিন্দুরা। এ ঘটনার মধ্য দিয়ে ভারতজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে মুসলিমবিরোধী দাঙ্গা। ওই দাঙ্গায় অসংখ্য মুসলমানকে হত্যা করা হয়।

    গুলবার্গের ওই গণহত্যায় জড়িত থাকায় ৬৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়। মামলা চলাকালীন মৃত্যু হয় ছয় অভিযুক্তের। এর মধ্যে ভিএইচপি নেতা অতুল বৈদ্যসহ ২৪ জনকে গত ২ জুন দোষী সাব্যস্ত করে আদালত। বেকসুর খালাস করে দেয়া হয় ৩৬ জনকে। খালাস পাওয়াদের মধ্যে আছেন বিজেপি নেতা বিপিন পটেল এবং পুলিশ ইনস্পেক্টর কেজি এর্দা।

    NO COMMENTS

    Leave a Reply